জেনে নিন, ফের যে কারণে বাড়তে যাচ্ছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি !

দেশের শিক্ষাপ্রতিঠানের সর্বশেষ বর্ধিত করা ছুটি অনুযায়ী বন্ধ থাকবে আগামী ১৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত। তবে এরপর আবারও বাড়তে পারে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি। কেননা জাতীয় কমিটির পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে ভ্যাকসিন না পেলে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা কঠিন হয়ে পড়বে।মহামারী কোভিড-১৯ ভাইরাসের সংক্রমণের শুরু থেকেই দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। গত মার্চ মাস থেকে শুরু হয়ে আসা এই বন্ধ এখনও বহাল রয়েছে। একের পর ছুটির মেয়াদ শেষ হবার পর দফায় দফায় বাড়ানো হচ্ছে ছুটি। শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা তাই শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ নিয়ে পড়েছেন নতুন শংকায়।

অন্যদিকে, দেশে ভ্যাকসিন আসলে প্রথমেই দেয়া হবে ষাটোর্ধ্ব নাগরিক, চিকিৎসক, পুলিশ, সাংবাদিক সহ ফ্রন্টলাইনে থাকা মানুষদের। তবে ভ্যাকসিনের এমন বণ্টনের ফলে শিক্ষার্থীরা প্রাথমিকভাবে এর বাইরে থাকছেন সেটা একপ্রকার নিশ্চিত। ফলে জাতীয় পরামর্শক কমিটি মতামত জানিয়েছে ১৮ বয়সের বেশি বয়সী শিক্ষার্থীদেরকে ভ্যাকসিন দেয়ার ব্যাপারে সম্ভাব্যতা যাচাই করা প্রয়োজন।

গতকাল (২২ নভেম্বর) জাতীয় পরামর্শক কমিটির ২২তম সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ডা. মোহাম্মদ শহিদুল্লাহর নেতৃত্বে অনুষ্ঠিত হওয়া এই সভা শেষে শিক্ষার্থীদের ভ্যাকসিন দেয়ার ব্যাপারে এসকল তথ্য জানানো হয়েছে।প্রকাশিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সরকার ইতোমধ্যে অক্সফোর্ড ও অ্যাস্ট্রাজেনিকার তিন কোটি ডোজ ভ্যাকসিন কেনার জন্য ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট ও বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালের মধ্যে ত্রিপক্ষীয় চুক্তি করেছে। এজন্য সরকার অর্থও বরাদ্দ করেছে।

এমন উদ্যোগকে সমর্থন জানানোর পাশাপাশি বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ভ্যাকসিন বিতরণ, রক্ষণাবেক্ষণ ও দেওয়ার প্রস্তুতি চলছে। এ প্রক্রিয়া দ্রুত সম্পন্ন করা প্রয়োজন। একইসঙ্গে ছাত্রছাত্রীরা ভ্যাকসিন না পেলে বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজ খোলা কঠিন হবে বলে মন্তব্য করে কমিটি বলছে, ১৮ বছরের ঊর্ধ্বে ছাত্রছাত্রীদের ভ্যাকসিন দেওয়ার সম্ভাব্যতা যাচাই করা প্রয়োজন।তবে শেষ পর্যন্ত ভ্যাকসিন নামক এই সোনার হরিণ কবে নাগাদ হাতে এসে পৌঁছায় সেটাই এখন বড় প্রশ্ন সকলের সামনে। সূত্র- city24news.com

Updated: 24/11/2020 — 8:20 AM